শিম গাছের রোগ ও প্রতিকার

শীতকালীন সবজি হিসেবে জনপ্রিয় শিম নানা রকম রোগ বালাই এ আক্রান্ত হতে পারে। এখানে শিম চাষে সৃষ্ট রোগ গুলো সমাধান সহ একে একে তুলে ধরা হলো । শিম গাছের রোগ বালাই প্রতিরোধের জন্য দুইটি পদ্ধতি রয়েছে প্রথমটি হচ্ছে প্রাকৃতিক পদ্ধতি এবং দ্বিতীয় টি রাসায়নিক পদ্ধতি বা কীটনাশক প্রয়োগ। এখানে প্রাকৃতিক উপায় শিম গাছের রোগ প্রতিরোধ ও চিকিৎসার নিয়ম কানুন এবং রাসায়নিক উপায়ে শিমের রোগবালাই ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হলো।
Anthracnose শিমের এনথ্রাকনোজ রোগের চিকিৎসা
এই রোগ টিতে আক্রান্ত হলে শিম গাছের ফলের মধ্যে বাদামী রঙের আঁকাবাঁকা দাগ পড়ে। এই সমস্ত দাগের মধ্যে আবার স্পোর বা ছোট আকৃতির কীটের জন্ম হয়। এছাড়া গাছের পাতার উল্টো দিকে লাল বা কালো রঙের দাগ দেখা যায়। শিম চাষ পদ্ধতিতে এটি একটি বড়সড় বাধা। এই রোগটি মূল কারণ হচ্ছে ছত্রাক।

এনথ্রাকনোজ রোগের চিকিৎসা

রোগটির চিকিৎসা হিসেবে আগে থেকে সতর্ক থাকা উত্তম। যেহেতু এটি একটি শিমের ছত্রাকজনিত রোগ তাই বীজ কেনার সময় ছত্রাকনাশক দিয়ে বীজগুলো শোধন করে নিতে হবে। শিম গাছের গোড়া যথাসম্ভব পরিষ্কার আগাছামুক্ত রাখতে হবে। রোগ টি দ্বারা আক্রান্ত হয়ে গেলে এটা দূর করার জন্য ছত্রাকনাশক ব্যবহার করতে হবে ডায়াজনন ছত্রাকনাশক এই রোগটির জন্য বেশ ভালো কার্যকর।
প্রাকৃতিক ভাবে এ রোগটি প্রতিরোধ করতে কাঠের ছাই বেশ ভালো কার্যকর। গাছের পাতার উপর এবং গোড়ায় সামান্য পরিমাণ ছাই দিয়ে রাখলে শিম গাছের এই ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে যায়।

Rust বা শিম গাছের মরিচা রোগ

শিম গাছের রোগ ও প্রতিকার নিয়ে আলোচনা করতে গেলে যে বড় রোগ গুলো সামনে আসে এটি তার মধ্যে একটি। শিম গাছ মরিচা রোগে আক্রান্ত হলে শিমের চাষ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এতে আক্রান্ত হলে শিম গাছের পাতায় ছোট ছোট বাদামের স্পট তৈরি হয় এবং পরবর্তীতে পাতাগুলো কুঁকড়ে যায় ও শুকিয়ে যায়। রোগটি আক্রমণের শুরুতে পাতার নিচে ছোট ছোট সাদা রঙের পেস্ট তৈরি হয়।

শিম গাছের মরিচা বা Rust রোগের চিকিৎসা

যেহেতু শিমের মরিচা রোগ একটি ছত্রাকজনিত রোগ তাই ছত্রাকনাশক প্রয়োগের মাধ্যমে এর প্রতিকার করতে হবে। ছত্রাক নাশক হিসেবে ডায়াথেন , জায়নেব, কুপ্রাভিট, রোভরাল এইগুলোর যে কোন একটি ওষুধ স্প্রে করলেই চলবে। এছাড়া প্রাকৃতিক ভাবে রোগ প্রতিরোধের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী উপায় হচ্ছে এই ধরনের ছত্রাক প্রতিরোধী জাত চাষের জন্য ব্যবহার করা। নিচের শিমগাছের কিছু উন্নত জাতের নাম দেয়া হলো যে জাতগুলো এ ধরনের ছত্রাক জাতীয় রোগে আক্রান্ত হয় না। এগুলো বপন করে আপনি রোগমুক্ত শিমের চারা পেতে পারেন।

Florigreen, Green Savage, Columbia pinto শিম গাছের এই জাতগুলো ছত্রাক জাতীয় রোগের বিরুদ্ধে রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করে।

শিম গাছের শিকড় পচা রোগ

শিম গাছ শিকড় পচা রোগে আক্রান্ত হলে গাছের গোড়ার উপরের অংশ ঠিক থাকে। কিন্তু গোড়া থেকে মাটির নিচে শিকড় সম্পূর্ণরূপে নষ্ট হয়ে যায় এবং গাছ কিছুদিন পর হঠাৎ করে মারা যায়। হাত দিয়ে টান দিলে পচা শেখর পাটের আঁশের মতো শুকনো হয়ে খুব সহজে উঠে আসে।

শিম গাছের শিকড় পচা রোগের চিকিৎসা

শেকড় পচা রোগের প্রাকৃতিক চিকিৎসা হিসেবে শিম চাষের পূর্বে মাটি শোধন করাই সবচেয়ে সহজ সমাধান। চাষ শুরুর পূর্বে মাটির সাথে (ফরমালিন / Terraclor/ Nabam ) এই রাসায়নিক ওষুধ গুলোর যে কোন একটি দিয়ে মাটি শোধন করে নেয়া উচিত তাহলেই রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা আর থাকে না।

শিম গাছের মোজাইক ভাইরাস

এই রোগটি মূলত ভাইরাসের আক্রমণে হয় বলে এটি প্রতিকার করা সম্ভব নয়। কিন্তু শিম গাছের অন্যান্য রোগ বালাই গুলোর মত এটি কে প্রতিরোধ করা সম্ভব। মূলত মোজাইক ভাইরাস ছড়ায় জব পোকার মাধ্যমে। তাই কীটনাশক প্রয়োগ করে জব পোকা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে অনেকাংশেই শিম গাছের মোজাইক রোগ হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। এছাড়া ভাইরাস রেজিস্ট্যান্স শিমের কিছু জাত রয়েছে যে গাছ গুলো মোজাইক ভাইরাস আক্রান্ত হয় না। এমনই কিছু শিমের হাইব্রিড জাত হচ্ছে Mon roe, Glades,Golden gem ইত্যাদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *